ডটার অফ বাংলাদেশ 0 984

ত্রিভুবন বিমানবন্দরের আকাশে তখন শা শা করে উড়ে আসছে ইউ এস বাংলা ২১১ নামের ফ্লাইট।বিমানের যাত্রীরা মুখিয়ে আছে সৌন্দর্যের অপ্সরা নেপাল এর মাটিতে পা ফেলার জন্যে। চাপা উত্তেজনা নিয়ে আর মুখে প্রচন্ড ভয় নিয়ে জীবনের প্রথম ফ্লাইটে উড়া ছোট শিশুটি তখন হয়তো নামার জন্যে ভীষন রকমের তাড়া

এক ঝাঁক তরুন মেধাবি হবু ডাক্তার বসে আছে বাড়ি ফেরার প্রচন্ড ব্যস্ততা নিয়ে। মা হয়তোবা অপেক্ষায় আছে প্রিয় সন্তানটির মুখ দেখার জন্যে।ডেবিডসনের বই নিয়ে উঠা এইসব হবু ডাক্তারদের ফাইনাল ইয়ার দিয়ে বাড়ি ফেরতে আর হয়তোবা কিছু সময় বাকি ছিল। বাবা এয়ারপোর্টের লাউঞ্চে অপেক্ষায় আছে সাদা এপ্রোন পড়া প্রিয় রাজকন্যাটিকে বুকে টেনে নেয়ার জন্যে।

নটরডেম কলেজ থেকে পাশ মেধাবী হবু ডাক্তার পিয়াস রয় চেক ইন দিয়ে হাসিমুখে আরেকবার হয়তো স্ট্যাটাস লিখার জন্যে বারবার স্মার্ট ফোন টি হাতে নিচ্ছে” স্টে সেইফলি” দিয়ে আরেকটা সেলফি পোস্ট দিতে।

ক্লান্ত চোখে তৃতীয় বার হানিমুন আসা দম্পতিযুগল হয়তো হোটেলে বুকিং নিয়ে মত্ত।

সাংবাদিক ফয়সাল ও উড়াল দেন নেপাল।কিচ্ছুক্ষন পর ই হয়তবো প্রিয়তমার গলা শোনার জন্যে নেমেই ফোন দেবার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন

ট্রাফিক কন্ট্রোলের অধীর অপেক্ষায় ২৪ বছরের অভিজ্ঞ পাইলট আবিদ হাসান। বারবার পাঠানো হচ্ছে বিভ্রান্তিকর তথ্য ” টু জিরো” কখনো আবার ” জিরো টু”। ৫০০০ ঘন্টায় ফ্লাইট অভিজ্ঞ বিমানে থাকা পাইলট আবিদ হাসান তখন হয়তো দিকভ্রান্ত।

আর এদিকে বসে আছেন কো পাইলট পৃথুলা রাশিদ। শূন্যে উড়ে বেড়ানোর স্বপ্ন তাড়া দিয়ে বেড়িয়েছে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজী সাহিত্য পড়ুয়া এই তরুনীকে। নিজের স্বপ্ন কে আকতে ইংরেজী সাহিত্য ছেড়ে নেমেছিলেন উড়াল দেয়ার। বাবা মা মায়ের একমাত্র মেয়ের এই স্বপ্ন মা হয়তো হাসিমুখে মেনে নিয়েছিলেন এক বাক্যে তাই হয়তো ছুটতে দিয়েছিলেন আকাশ জয়ের প্রতিযোগীয়তায়।

মেধাবী এই শিক্ষার্থী তার মেধার পরিচয় দিয়ে কঠিন কঠিন পরীক্ষায় উতড়ে ও গিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা আর হলো না। শূন্যতায় হারিয়ে যেতে হলো বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে হবু এই নারী পাইলট টিকে। মৃত্যুর মিছিলে মিশে যেত হলো পৃথুলা কে।

দশ জন মানুষ কে বাঁচিয়ে দিয়ে মৃত্যুর এই মিছিল আরো দীর্ঘ করলেন মহান এই ভবিষ্যৎ পাইলট পৃথুলা। ফেইসবুক খুললেই সদ্য হাসোউজ্বোল এই তরুনীটির মুখ ভাসছে নিউজফিড জুড়ে। নেপাল ও ভারতের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে মহান এই তরুণী কে নিয়ে চলছে শোকের মাতম

ইতিমধ্যে ” ডটার অফ বাংলাদেশ” খ্যাতিতে ভূষিত হয়েছেন স্বেচ্ছায় প্রান বিলিয়ে দেয়া এই মহান মানুষটি।

Previous ArticleNext Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular Topics

Editor Picks